ত্বক ও চুলের যত্নে ভিটামিন ই

14.10.14





আজ আমার পোস্টে আমি ত্বক চুলের জন্য ভিটামিন কিভাবে উপকারি তা সেয়ার করবো। আমি জানি অনেকেই হয় তো জানেন বা পড়েছেন সৌন্দর্য বা রূপচর্চার ক্ষেত্রে এটি একটি গুরুত্বপূর্ন উপাদান। অনেক ত্বক বা চুলের প্রডাক্টে ভিটামিন ব্যবহার করা হয়। এমন কি ঘরে তৈরি রূপচর্চার প্যাকগুলিতেও অনেকে ভিটামিন ক্যাপস্যুল সরাসরি ব্যবহার করেন। যেমনটি আমি করি। আমার স্কিন কেয়ার বা চুলের যত্নের প্রায় সব ঘরে তৈরি সামগ্রীতে আমি একটা মাত্রায় ভিটামিন ক্যাপসুলের ভেতরের তরলটি ব্যবহার করি।

 সৌন্দর্য চর্চায় এই আশ্চর্য  উপাদানটির আরও কিছু উপকারিতা জেনে নেই।  



ত্বকের জন্য ভিটামিন

ভিটামিন ত্বকে nourishes এবং মশ্চালাইজ করেপ্রতিদিনের ব্যবহার করা বডি লোশনের সঙ্গে ভিটামিন ক্যাপসুল বা ভিটামিন তেল মিশিয়ে ব্যবহার করে দেখুন। অথবা যাদের চামড়া একটু রুক্ষ তাঁরা অলিভ তেলের সঙ্গে ভিটামিন ক্যাপসুল মিশিয়ে রাতে ঘুমানোর আগে লাগিয়ে নিন। দেখবেন কিছু দিনের মধ্যে ত্বক হয়ে উঠেছে মসৃণ।

ভিটামিন  ই তার  অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট মূলক কাজের জন্য পরিচিত  এবং এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমূহের আপনার ত্বকের সবচেয়ে ভালো বন্ধুঅ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমূহ ত্বকে যে সমস্ত ক্ষতিকারক মৌল উত্পাদিত হয় তার বিরুদ্ধে লড়াই করে।এই ক্ষতিকারক মৌলগুলি  সেলুলার পর্যায়ে গিয়ে ত্বকের কোষ এবং কোলাজেন তন্তু কে ক্ষতি  করতে পারে।  উপরোক্ত কারনে ত্বকের যে বয়সের ছাপ পড়ে তা রুখতে ভিটামিন যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে। ভিটামিন কোলাজেন তন্তু পুনর্জন্ম দিতে সাহায্য করে। এই জন্যই  অকালে, আপনার মুখে  চিন্তা লাইন,কুঁচকানো ভাজ এবং অন্যান্য সূক্ষ্ম লাইন কমাতে  সাহায্য করে

ত্বকের স্বাভাবিক রং এবং বয়স দাগ দূর করতে ভিটামিন  সাহায্য করে। রোদে পোড়া দাগ এবং চামড়ায় চুলকানোর মতো সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে ভিটামিন । এমন কি আপনি  যে কোন রকমের দাগ দূর করার জন্য ভিটামিন তেল ব্যবহার করতে পারেন।

যদি ভিটামিন ক্যাপস্যুলকে আপনার দৈনন্দিন ত্বক চর্চার  অপরিহার্য অংশ করতে চান তাহলে আপনার দৈনন্দিন ময়েশ্চারাইজার বা মুখের প্যাক বা রাতে ক্রিম একটি ক্যাপসুল মিশিয়ে ব্যবহার করুন।

এছাড়াও মেকআপ রিমুভার হিসেবেও ব্যবহার করতে পারেন এই ক্যাপস্যুল বা তেল । নারকেলের জলের সঙ্গে সমান পরিমাণে  ভিটামিন তেল মিশিয়ে  ঠোঁট পরিষ্কার বা চোখের মাস্কারা তোলার কাজে ব্যবহার করতে পারেন।

কিছু কিছু ক্ষেত্রে সতর্কতা আবলম্বন করতে হবে।

এলার্জি প্রবণ এবং ব্রণের সমস্যা আছে এই রকম ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করা একান্ত জরুরী। তাছাড়া ভিটামিন  ব্যবহারের আগে একটি  নির্দিষ্ট মাত্রায় আপনার ত্বকে প্রয়োগ করে দেখে নিতে হবে যে এটি সুট করছে কি না। যদি সুট না করে সে ক্ষেত্রে আপনি আপনার ত্বকের উপর ভিটামিন ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।  

ত্বক মত, ভিটামিন চুল জন্য ভীষণভাবে উপকারি

ভিটামিন তেল সামান্য গরম করে  আপনার স্কাল্পে ও চুলে মালিশ করুন। এই তেল চুলকে স্বাস্থ্য উজ্জ্বল  করে তোলার পাশাপাশি চুলের গোঁড়া মজবুদ করে তোলে।চুলের দু’মুখো সমস্যাকে দূর করতে ভিটামিন তেল সাহায্য করে। এছাড়া  খুসকি, পাকা চুলের সমস্যা, দূর করতেও সাহায্য করে। পাশাপাশি চুল পড়া রোধ করে।



তাই আর দেরি না করে ঔষধের দোকান থেকে  কিছু ভিটামিন ক্যাপসুল কিনে আনুন। ডেইলি রূপচর্চার রুটিনে ভিটামিন ক্যাপসুলকেও যোগ করুন। দামও খুব বেশি না।  কেমন লাগলো আজকের পোস্টটি জানাবেন। আর এই পোস্ট সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই করবেন। আপনি যদি অন্য কোন ভাবে ভিটামিন ক্যাপসুল ব্যবহার করে থাকেন, তাহলে সেটিও সেয়ার করতে পারেন। 
 take care

Follow Me on Pinterest
                                             Facebook এর সঙ্গে থাকুন।

You Might Also Like

0 comments

Contact Form

Name

Email *

Message *

Translate

Followers

Labels