রান্নাঘরের সব্জির অংশ থেকে নতুন ফলন

4.7.14


তাজা সব্জি খেতে যেমন ভালো তেমনি তা স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয়। কিন্তু দোকান থেকে যেসমস্ত সব্জি কিনে আনা হয় তার কতটা তাজা থাকে সেটা নিশ্চয় বলে বোঝাতে হবে না। তাছাড়া প্রতি সপ্তাহে বাজার থেকে যে পরিমাণে সব্জি কেনা হয় তার দামের সঙ্গে সব্জি পরিমাণটা যে কতটা কম থেকে সে কথাটা আর নাই বা বললাম। আসলে দিন দিন পেঁয়াজ, আলু বা অন্যান্য সব্জির যা দাম বাড়ছে, এমন চললে একটা সময় খাদ্য তালিকা থেকে অনেক কিছুকে বাদ দিতে হবে। কিন্তু এর থেকে কি বাঁচার কোন উপায় নেই? উপায় তো আছে। বলে না গঙ্গা জলে গঙ্গা পূজা, তেমনি সব্জি দিয়ে সব্জি তৈরি। বোঝা গেলো না তো ? আমাদের খাদ্যতালিকায় প্রতি দিন এমন কিছু সব্জি বা শাক থাকে যার ফেলে দেওয়া অংশকে কাজে লাগিয়ে আবার নতুন সব্জি উৎপাদন করতে পারি। এর জন্য কোন বাড়তি খরচ তো নেই, এমন কি  বীজ বা চাড়া গাছও লাগবে না। শুধু ফেলে দেওয়া সব্জির অংশটুকু চাই। আর জানতে হবে কিপদ্ধতিতে সেই অংশ থেকে নতুন ফলন পাওয়া যাবে। মোটামুটি   লাগানোর মাত্র এক মাসের মধ্যেই সব্জি আপনার হাতে। এতে পয়সারও  সাশ্রয় তাজা সব্জিও পেলেন। তাহলে আর দেরী কিসের চলুন দেখে নেই এরকমই কিছু ফল ও সবজি যা বীজ ছাড়াই আবার বেড়ে উঠে।

লেটুস

লেটুসপাতা সালাদের জন্য সবার প্রথম পছন্দ। সাধারণত আমরা লেটুসের তাজা পাতাগুলি সালাদের জন্য রেখে বাকি অংশটি ফেলে দেই। এক্ষেত্রে যা করতে হবে, লেটুসের যে অংশটি ফেলে দেই সেই অংশটি সংগ্রহ করতে হবে। অর্থাৎ নীচের অংশটি। এবার একটি পাত্রে এক ইঞ্চ এর মতো জল নিন এবং পাতার অবশেষ অংশটি তার মধ্যে রাখুন। প্রায় দিন চারের মধ্যে এর থেকে শিকড় বের হতে শুরু করে দেবে। এবার এটি মাটিতে বা টবে পুঁতে দিন।

 লেমন গ্রাস

লেমন গ্রাস তাজা খুঁজে পাওয়া কিন্তু এতো  সহজ নয়। আমি তো পাই নি। লেমন গ্রাসের যাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে তাঁরা কিন্তু প্রায় রোজই সরবত হিসাবে বা চা বানাতে ব্যবহার করে থাকেন। তাছাড়া ঠান্ডা লাগলে কিংবা জ্বর আসলে লেমন গ্রাসের জুস খেলে বেশ তাড়াতাড়ি উপসম হয়। উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা আছে যাদের তাঁরা নিয়মিত লেমন গ্রাসের জুস খেলে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকবে।  ঔষধি এই ঘাসটি মূল সংগ্রহ করুন। একটি কাঁচের জারে জল নিন এবং মূলটি এর মধ্যে ডুবিয়ে রাখুন। সূর্যালোক পরে এমন স্থানে রাখুন পাত্রটি। এক সপ্তাহের মধ্যেই আপনি এর মধ্যে পরিবর্তন লক্ষ্য করতে পারবেন। এরপর লেমন গ্রাসটি বাইরে রোপণ করা যেতে পারে। জায়গা থাকলে মাটিতে নয় তো টবে লাগান।

আলু

আলু উপরের দিকে যে চোখের মতো অংশটি আছে সেটি কেটে নিন। প্রায় ১২ ঘণ্টার জন্য সেই অংশটি শুকোতে দিন। এবার একটি কাপের মধ্যে সামান্য জল নিন এবং আলুটি এর মধ্যে রেখে দিন। তবে আলুর চোখ যেন জলে ডুবে না যায় সে দিকে নজর রাখবেন। খুব তাড়াতাড়ি আলুর মধ্যে নতুন কুঁড়ি দেখা দেবে। তখন সেটি নিয়ে বাগানে পুঁতে দিলেই চলবে।

 মিষ্টি আলু



একটি কাঁচের জারে কয়েক ইঞ্চির মতো জল দিয়ে পূর্ন করুন। এবার জারেটিতে একটা গোটা মিষ্টি আলু ডুবিয়ে রাখুন। সূর্যালোক আসে এমন স্থানে রাখুন এবং মাঝেমধ্যে জল পরিবর্তন করুন। কিছু দিনের মধ্যেই দেখতে পাবেন যে আলু থেকে স্প্রাউট বের হয়ে আসছে। যখন স্প্রাউট চার থেকে পাঁচ ইঞ্চি লম্বা হয়ে আসবে তখন সেটি কেটে নিন এবং পুনরায় জলের জারের মধ্যে ডুবিয়ে রাখুন। কয়েক দিনের মধ্যে শিকড় দেখা দেবে।  শিকড় প্রায় একটি ইঞ্চির মতো লম্বা হলে মাটিতে পুঁতে দিন।


আদা

আদা খুব সহজে ফলানো যায়। হাতে একটি আদা নিয়ে দেখুন যে কোন দিনে আদার মূলটি দেখা যাচ্ছে। আদার মূলের দিকটি মাটিতে পুঁতে দিন। এক সপ্তাহ আদার বৃদ্ধির জন্য যথেষ্ট।
  

রসুন

রসুন স্বাস্থ্য জন্য চমৎকার খাদ্য এবং আপনি খুব সহজেই রসুন ফলাতে পারবেন। রসুনের একটি কোয়া নিন এবং মাটিতে পুঁতে দিন। তবে খেয়াল রাখবেন আবহাওয়া যেন উষ্ণ হয়। এবং যে এলাকায় বা যে স্থানে রসুন লাগাবেন সেখানে যেন পর্যাপ্ত সূর্যালোক আসে তা নিশ্চিত করে নিন।





পেঁয়াজ

পেঁয়াজ ফলন করাও খুব সহজ। এটি আপনি ঘরের মধ্যে বা বাইরেও ফলাতে পারেন। যে রসুনের মতোই পেঁয়াজের স্থান নির্বাচন করুন। আপনার নির্বাচিত স্থানে কিছু পিঁয়াজ পুঁতে দিন এবং জল দিন।

গাজর
গাজরের উপরের অংশটি কেটে সামান্য জলের মধ্যে ডুবিয়ে রাখুন, যত দিন না সবুজ শিকড় দেখা যাচ্ছে। তারপর মাটিতে পুঁতে দিন। মূল জাতীয় সমস্ত উদ্ভিজ্জ সব্জি এই একই পদ্ধতিতে ফলাতে পারেন। যেমন বিট এই একই পদ্ধতিতে  ফলাতে পারবেন।




টমেটো

নতুন টমেটো পাওয়ার জন্য প্রয়োজন টমেটোর  বীজ। না না বীজ বাজার থেকে কিনে আনতে হবেনা। রান্নার জন্য টমেটো কাটবেন তখন কিছু টমেটোর বীজ বের করে রাখুন।  বীজগুলি জল দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিন। টিস্যু দিয়ে বীজগুলি শুকিয়ে নিন। এবার বীজগুলি মাটিতে পুঁতে দিন। টবের মধ্যে মাটি ভরেও বীজ পুঁতে পারেন। অঙ্কুরোদ্গম হলে টবটি সূর্যালোক আসে এমন স্থানে রেখে দিন।

কাঁচা লঙ্কা

কাঁচা লঙ্কা গাছ বাড়িতে করা খুব সহজ এবং এর জন্য খুব একটা যত্নেরও দরকার পড়েনা। কাঁচা লঙ্কা বীজ সংগ্রহ করে টবের মাটিতে পুঁতে দিন। মাঝেমধ্যে জল দিন। অঙ্কুরোদ্গম হতে একটু সময় লাগতে পারে। অপেক্ষা করুন।






মিষ্টি কুমড়ো


মিষ্টি কুমড়ো থেকে বীজ সংগ্রহ করে মাটিতে পুঁতে দিলে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে অঙ্কুরোদ্গম হবে। এক্ষেত্রে সূর্যালোক প্রচুর দরকার।
    take care


Follow Me on PinterestFacebook এর আমাদের সঙ্গে থাকুন।




You Might Also Like

0 comments

Contact Form

Name

Email *

Message *

Translate

Followers

Labels